• শিরোনাম

    মাতৃ ভান্ডারের কুমিল্লা নাকি কুমিল্লার মাতৃ ভান্ডার?  

    নিউজ ডেস্কঃ | রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ | পড়া হয়েছে 90 বার

    মাতৃ ভান্ডারের কুমিল্লা নাকি কুমিল্লার মাতৃ ভান্ডার?   

    কুমিল্লার মাতৃ ভাণ্ডার না’কি মাতৃ ভাণ্ডারের কুমিল্লা? এমন প্রশ্ন আসতেই পারে। কারণ, কুমিল্লার যে ঐতিহ্যগুলো রয়েছে এর মধ্যে শীর্ষস্থানীয় হল ‘মাতৃ ভাণ্ডার’- এর রসমালাই। অনেকের কাছেই কুমিল্লা নামটি শোনামাত্রই প্রথমে মাথায় আসে মাতৃ ভাণ্ডারের নাম।

     

    ১৯৩০ সালে প্রথম ত্রিপুরা রাজ্যের অন্তর্গত কুমিল্লার ঘোষ বংশের হাত ধরে মাতৃ ভাণ্ডারের সূচনা হয়। শুরুতে এর নাম ছিল ক্ষীরভোগ। পরবর্তীতে নাম দেয়া হয় রসমালাই।

     

    রসমালাই প্রস্তুতকরণকারী একজন কারিগরের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রতিদিন প্রায় পাঁচ-ছয়জন দুগ্ধ উৎপাদনকারী ব্যক্তি এখানে দুধের সরবরাহ করে থাকেন। যা বড় কড়াইতে উত্তপ্ত করে একদম ঘন করা হয়। পরবর্তীতে এর মধ্যে ছোট ছোট বেলনাকার রসগোল্লা ছেড়ে দিয়ে তৈরি করা হয় রসমালাই।

     

    বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদও এক সময় এই রসমালাই কিনেছেন। এছাড়া বাংলাদেশে অবস্থিত যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক হাইকমিশনার সহ অনেক বিখ্যাত ব্যক্তিবর্গগণ মাতৃ ভান্ডারের রসমালাই সংগ্রহ করেছেন। বিভিন্ন সময়ে এই সংবাদগুলো এসেছে মিডিয়া ও পত্রপত্রিকায়।

     

    প্রায় সব সময়ই দোকানে প্রচুর ভিড় লেগে থাকে। মানুষজন লাইন ধরে রসমালাই ক্রয় করেন। ভিড় সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন কারিগর ও সংশ্লিষ্টরা। মাতৃ ভান্ডারের একমাত্র বিক্রয়কেন্দ্র কুমিল্লা নগরীর মনোহরপুর এলাকায় গিয়ে এই চিত্র লক্ষ্য করা গেছে। প্রতিদিন গড়ে ঘন্টায় প্রায় ১০০/১৫০ কেজি রসমালাই বিক্রি হয় বলে জানিয়েছেন মাতৃভাণ্ডার এর বর্তমান স্বত্তাধিকারী অনির্বাণ সেনগুপ্ত।

     

    তিনি আরও জানান, অতুলনীয় স্বাদের জন্য দেশ এবং দেশের বাইরে রসমালাই এর প্রচুর চাহিদা রয়েছে। ইউরোপ, আমেরিকাসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে এর চাহিদা রয়েছে। তবে চাহিদা থাকলেও মূল বিক্রয়কেন্দ্র ব্যতীত নেই কোনো শো-রুম কিংবা বিক্রয়কেন্দ্র।

     

    কিন্তু সরেজমিনে গিয়ে লক্ষ্য করা যায় বর্তমানে কুমিল্লার বিশ্বরোড ও আলেখারচর বিশ্বরোড এলাকায় বিভিন্ন বিশেষণে এবং নামে প্রায় ৬০-৭০টি মাতৃ ভান্ডার রয়েছে যেগুলোর সবগুলোই ভুয়া। এ ব্যাপারে নেয়া হয় নি কোনো আইনি পদক্ষেপ। মাতৃ ভাণ্ডারের সত্ত্বাধিকারীকে বিষয়টি জানানো হলে তিনি বিভ্রান্ত না হয়ে একমাত্র বিক্রয়কেন্দ্র মনোহরপুর থেকে রসমালাই সংগ্রহ করার অনুরোধ জানান।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

  • ফেসবুকে nabinagar71.com