• শিরোনাম

    নবীনগরে আ.লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে দিনভর উত্তেজনা

    ৩৩ সদস্যের পাল্টা সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি ঘোষণা

    নিজস্ব প্রতিবেদক | মঙ্গলবার, ২৯ মার্চ ২০২২ | পড়া হয়েছে 262 বার

    ৩৩ সদস্যের পাল্টা সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি ঘোষণা

    বিবদমান দুই পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে দিনভর টানটান উত্তেজনার মধ্য দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের আসন্ন সম্মেলনকে কেন্দ্র করে এবার ৩৩ সদস্যের পাল্টা একটি সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি ঘোষণা করলেন দলটির একাংশের নেতারা।

     

    আজ মঙ্গলবার (২৯মার্চ) বিকেলে আওয়ামীলীগ দলীয় অফিসটি রহস্যজনক কারণে তালাবদ্ধ থাকায় স্থানীয় ডাক বাংলোতে এক সংবাদ সম্মেলন করে এই পাল্টা ‘সম্মেলন প্রস্ততি কমিটি’ ঘোষণা করা হল।

     

    ঘোষিত ৩৩ সদস্যের প্রস্তুতি কমিটির নতুন ‘আহবায়ক’ করা হয়েছে উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি, সাবেক ছাত্রনেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা নিয়াজ মোহাম্মদ খানকে। সংবাদ সম্মেলনে নিয়াজ মোহাম্মদ খান নিজেই নতুন এই কমিটি ঘোষণা করে উপস্থিত সাংবাদিকদের হাতে কমিটির তালিকাটি তুলে দেন।

    এসময় তাঁর পাশে ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামীলীগের প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা কমিটির সদস্য এডভোকেট কাজী মোর্শেদ হোসেন কামাল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আ.লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিষ্টার জাকির আহাম্মদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সফিকুল ইসলাম শফিক, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. মিজানুর রহমান, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক সাবেক চেয়ারম্যান আজহার হোসেন জামাল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রনেতা সফিকুল ইসলামসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগের বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ।

    কমিটিতে আহবায়ক হিসেবে নিয়াজ মোহাম্মদ খান ছাড়া বাকী ৩২ জন সদস্য হলেন,এডভোকেট কাজী মোর্শেদ হোসেন কামাল, ব্যারিষ্টার জাকির আহাম্মদ, ইঞ্জিনিয়ার কবির আহমেদ ভূঁইয়া, সফিকুল ইসলাম শফিক, মো. মনিরুজ্জামান মনির, মো. শাহরিয়ার বাদল, কাজী ইয়াবের হাসান জামিল, ডা. মিজানুর রহমান, এডভোকেট জুলকার নাঈম, ভিপি আবদুর রহমান, এডভোকেট মাহাবুবুর রহমান, আজহার হোসেন জামাল, প্রবীর ভট্টাচার্য, নিয়াজুল হক কাজল, আবদুল খালেক বাবুল, জিএস মো. শফিকুর রহমান, জাকির হোসেন সাদেক, ভিপি এনামুল হক এনাম, প্রণয় কুমার ভদ্র, মো. নাছির উদ্দিন, তোফাজ্জল হোসেন টেনু, কবির আহমেদ হোসেন, আবুল বাশার, এডভোকেট হেলাল উদ্দিন, বিপুল চন্দ্র সাহা, মো. মাশুকুর রহমান, মোস্তাফিজুর রহমান নান্নু, এডভোকেট আশিশ, মো. মাহাবুব রেজা, শওকত ওসমান, শিউলী রহমান ও মো. সফিকুল ইসলাম।

    জানা গেছে, সম্প্রতি নবীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ হালিমকে ‘আহবায়ক’ করে নয় সদস্যের যেই কমিটি ঘোষিত হয়েছে, সেই নয়জনের একজনকেও নতুন এই ৩৩ সদস্যের ঘোষিত পাল্টা কমিটিতে রাখা হয়নি।

    তবে এবারের কমিটিতে আগে বাদ পড়া দলটির শীর্ষ নেতাদের মধ্যে উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনির, ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সাদেক, ভাইস চেয়ারম্যান (নারী) শিউলী রহমান ও দলের যুব বিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দিনসহ অনেককেই রাখা হয়েছে। আবার দেখা গেছে, দলটির আলোচিত তিনজন সাংগঠনিক সম্পাদককে আগের কমিটিতে না রাখলেও এবার দু’জনকে অন্তভূর্ক্ত করা হয়েছে। তবে বাদ পড়েছেন আরেকজন সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ভিপি মোশাররফ হোসেন।

    এদিকে আজ দিনভর এই নতুন কমিটির নাম ঘোষণাকে কেন্দ্র করে উপজেলা সদরে সকাল থেকেই আওয়ামীলীগের বিবদমান দুই পক্ষের স্থানীয় সমর্থকদেরকে মুখোমুখি অবস্থান করতে দেখা গেছে।

    ফলে যেকোন সময় দুই পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের আশংকায় সকাল থেকে নবীনগরের এসি ল্যান্ড মোশারফ হোসাইনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ স্থানীয় ডাক বাংলোতে অবস্থান করতে দেখা যায়।

    এসময় আগের গঠিত কমিটি ও আজকে ঘোষিত কমিটির সমর্থক ও অনুসারীদের মধ্যে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছিলো। এ সময় দুপুর ১২ টার দিকে সদ্য ঘোষিত উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দের একটি আনন্দ মিছিল সদরে বের হলে উত্তেজনা আরও বেড়ে যায়। তবে কোন পক্ষের অনুসারীদেরকেই পুলিশ ডাক বাংলোতে ঢুকতে দেয়নি।

     

    এদিকে রহস্যজনক কারণে সকাল থেকে নবীনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের দলীয় অফিসটিতে তালা ঝুলতে দেখা যায়। এ নিয়েও অনেককে নানা মুখরোচক কানাঘুষা করতে দেখা যায়। এ অবস্থায় টান টান উত্তেজনার মধ্যে দুপুর ২টার দিকে ঢাকা থেকে দলটির একাংশের নেতারা নিয়াজ মোহাম্মদ খানের নেতৃত্বে নবীনগর সদরে ডাক বাংলোর সামনে এসে পৌঁছলে তাঁদের অনুসারীরা গগনবিদারী ম্লোগান দিতে দিতে চাঙ্গা হয়ে ওঠে। পরে ঢাকা থেকে আগত নেতৃবৃন্দ পুলিশী প্রহরায় হেঁটে উপজেলা পরিষদ গেইটে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে গিয়ে পুস্পস্তবক অর্পন করে পুনরায় ডাক বাংলোয় এসে সংবাদ সম্মেলন করেন।

     

    এদিকে দলীয় কার্যালয়টি কেন দিনভর তালাবন্ধ রাখা হলো এ বিষয় নিয়ে কথা বলতে গেলে আ.লীগের দায়িত্বশীল কেউই কথা বলতে রাজী হননি।

     

    তবে ডাক বাংলোয় সংবাদ সম্মলনে কাজী মোর্শেদ হোসেন কামাল তার বক্তব্যে এ ঘটনায় প্রচন্ড ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,’আজ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পাঞ্জলি দিতে এসে দলীয় অফিসে ঢুকতে পারলাম না এর চেয়ে লজ্জা আর কি হতে পারে? বিষয়টি দলীয় হাই কমান্ডকে অবগত করা হবে।

     

    ব্যারিষ্টার জাকির আহাম্মদ তার বক্তব্যে বলেন,আমরা কোন পদ নিতে আসিনি। মূলত দলের তৃণমূলের ত্যাগী নেতাদের সঠিকভাবে মূল্যায়ণ করতেই নতুন প্রস্তুতি কমিটিতে সবাইকে নেয়া হয়েছে।

     

    নিয়াজ মোহাম্মদ খান বলেন,’আসন্ন সম্মেলনে যেন প্রতিটি ইউনিয়ন থেকে ত্যাগী নেতাদের মূল দলে রাখা হয়, আমরা এবার সেজন্যই মূলত মাঠে নেমেছি।

     

    প্রসংগত, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসনের বর্তমান সাংসদ মোহাম্মদ এবাদুল করিম বুলবুল, সাবেক সাংসদ ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ফয়জুর রহমান বাদল এবং তিন বারের সাধারণ সম্পাদক এম এ হালিমের স্বাক্ষরযুক্ত এক চিঠিতে সম্প্রতি এম এ হালিমকে ‘আহবায়ক’ করে গঠিত নয় সদস্যের প্রস্তুতি কমিটি গঠনের পর থেকেই দলটির একাংশের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মাঝে প্রচন্ড ক্ষোভ, অসন্তোষ ও হতাশা বিরাজ করছিল।

     

    অভিযোগ রয়েছে, দলটির সত্যিকারের প্রবীণ, আদর্শিক ও ত্যাগী নেতাদের বদলে দলের সুদিনে যোগ দেয়া নবাগত একাধিক নেতাকে গঠিত ওই বহুল আলোচিত নয় সদস্যের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটিতে রাখার কারণেই অসন্তোষের সৃষ্টি হয়।
    স্থানীয় নেতাকর্মীরা জানান, দীর্ঘ আট বছর পর বহুল প্রত্যাশিত নবীনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন আগামি ২১ মে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    নবীনগরে প্রবাসীকে কুপিয়ে হত্যা

    ১৫ অক্টোবর ২০২০ | 919 বার

    আর্কাইভ

  • ফেসবুকে